রৌমারীতে গ্রামবাসির টাকায় কাঠের সাঁকো নির্মাণ

দেশজুড়ে
রৌমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ
০৩:৩০:১০পিএম, ২ নভেম্বর, ২০২১

কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারীতে দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের হরিণধরা গ্রামের সরকারি রাস্তাটি,কয়েক বছর আগের ভয়্যাবহ বন্যায় রাস্তা ভেঙে খাল তৈরি হওয়ায় সেই খালের উপর নিজস্ব অর্থে প্রায় ৭৫ ফুট লম্বা কাঁঠের সাঁকো নির্মাণ করেছেন গ্রামবাসি। এই সাঁকো নির্মানের ফলে ওই এলাকার কয়েক হাজার মানুষের যাতায়াতের ব্যবস্থা খুবই সহজ হয়েছে। সরে জমিনে গেলে ওই গ্রামের বাসিন্দা আমিনুল ইসলাম,রুহুল আমিন, আল-আমিন এবং আরও অনেকে বলেন কয়েক বছর পূর্বে ভয়াবহ বন্যার স্রোতে ভেঙ্গে যায় রাস্তাটি,চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরে। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পরেও আজও মাটি ভরাট কিংবা ব্রিজ নির্মাণ করা হয়নি রাস্তাটিতে। হরিণ ধরা গ্রাম, দাঁতভাঙ্গা গ্রাম,ধর্মপুর গ্রাম,ছাটকড়াইবাড়ী গ্রাম এবং আরও কয়েকটি গ্রামের হাজার, হাজার মানুষ যাতায়াতে দুর্ভোগে পড়েছিলো। কোন প্রকার যানবাহন ভ্যান,রিকশা, সাইকেল, মোটরসাইকেল চলাচল করতে পারেনি। যাতায়াত করতে হতো কলার ভেলায় চরে, কিংবা ছোট্ট নৌকায় চরে, কলার ভেলায় চড়ে পারাপারের সময় অনেকেই পড়েছে নানা দুর্ঘটনার কবলে। অনেক সময় রাতের বেলায় সাঁতার কেটেও রাস্তা পার হতে হতো। এমন অবস্থায় গ্রামের কিছু পরিশ্রমি সাধারণ মানুষ তাদের নিজস্ব অর্থায়নে একটি কাঠের সাঁকো নির্মাণ করেন। ৯নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সভাপতি মো.মতিয়ার রহমান বলেন আমরা গ্রাম বাসির পক্ষ থেকে ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট গিয়েছিলাম কিন্তু তিনি কোন প্রকার সহায়তা করেনি। অবশেষে আমরা গ্রামবাসি মিলে উদ্যোগ নিলাম এখানে একটি সাঁকো নির্মাণ করবো। পরে গ্রাম থেকে বাড়ি,বাড়ি টাকা তুলে এবং অনেকের কাছ থেকে গাছ নিয়ে, সেই গাছ দিয়েই সাঁকোর খুটি দিয়েছি। এবং গাছের তক্তা বানিয়ে বিছিয়ে দিয়ে নির্মান করেছি একটি কাঠের সাঁকো। এলাকার লোকজনের দাবি আমরা এই রাস্তায় দূরত্ব মাটি ভরাট কিংবা ব্রিজ চাই।