'কঠোর লকডাউনে' মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী

জাতীয়
বাংলামেইল রিপোর্ট।
০৬:৪৩:০৭পিএম, ২৭ জুন, ২০২১
ফাইল ছবি।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সারা দেশে সর্বাত্মক লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। আগামীকাল থেকে ‘সীমিত’ পরিসরে আর বৃহস্পতিবার থেকে সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হচ্ছে। আপাতত সাত দিন এবং পরবর্তীতে আরও বাড়ানো হতে পারে বিধিনিষেধ।

সামনের ‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

রোববার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে এর অধীন দপ্তর ও সংস্থাগুলোর বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি একথা জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনার সংক্রমণ বাড়ায় আগামী ১ জুলাই থেকে সরকার ‘কঠোর লকডাউন’ ঘোষণা করেছে। ২৮ জুন থেকে সীমিত পরিসরে লকডাউন শুরু হলে যানবাহন পর্যায়ক্রমে বন্ধ হয়ে যাবে। ১ জুলাই তা পুরোপুরি বন্ধ হবে।

তিনি বলেন, আমি সবাইকে আহ্বান করব- সামনে যে লকডাউন সেখানে পুলিশ থাকবে, বিজিবি থাকবে, সেনাবাহিনীর সদস্যরাও থাকবেন, যাতে লকডাউনটা সুন্দরভাবে পালিত হয়, ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণটা রোধ হয় এবং মৃত্যুর সংখ্যা যাতে অনেক কমিয়ে আনতে পারি।

সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যে কেউ লকডাউন না মানলে করোনায় মৃত্যুঝুঁকি আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সতর্কবাণী দিয়ে বলেন, আপনারা সবাই করোনার সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন, মাস্ক পরবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। স্যানিটাইজ করবেন এবং লকডাউন আপনারা মেনে চলবেন। আর যদি আমরা না মানি আমাদের মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়বে, আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়বে। হাসপাতালে চিকিৎসা দিতেও সমস্যা তৈরি হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, ইতোমধ্যে হাসপাতালের পাঁচ থেকে ছয় হাজার বেড রোগীতে ভর্তি হয়ে গেছে। কাজেই আমাদের সেই দিকেই খেয়াল রাখতে হবে।