রৌমারীতে এক বৃদ্ধ মহিলা কে পিটানোর অভিযোগ স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে

দেশজুড়ে
রৌমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ
০৪:২৬:১১পিএম, ৫ এপ্রিল, ২০২১

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের গয়টা পাড়া গ্রামের জয়মনা নেছা (৬০) স্বামীঃ মৃত- পোড়া মকদুম  নামের এক বৃদ্ধ মহিলা কে মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে  মারপিটের অভিযোগ উঠেছে।  টাপুরচর সরকারি প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক গাজীবুর রহমানের বিরুদ্ধে।

বৃদ্ধ জয়মনা নেছা বলেন তার ঘরে মাটি দেওয়ার জন্য তার নিজ বসত ভিটার জমির মধ্যে মাটি কাটতে গেলে প্রতিবেশী গাজিবুর রহমানের বড় ছেলে মাসুম (২২) এসে উচ্চস্বরে অকষ্ঠ ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে আমি মাসুম কে গালিগালাজ করতে নিষেধ করি। এবং বলি আমি আমার নিজের জমিনে মাটি কাটবো এতে তোমাদের কি? কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাড়ির ভিতর থেকে গাজিবর (৫০) ও তার স্ত্রী চায়না খাতুন (৪২) সহ দৌড়ায়ে আসে আমার দিকে। এবং নানা ধরনের ভাষায় আমাকে গালিগালাজ করে বিভিন্ন রকমের ভয় ভীতি প্রদর্শন করে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে গাজিবর রহমানের স্ত্রী আমাকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিয়ে আমাকে মারপিট করতে থাকে। আত্ম রক্ষার জন্য আমি দৌড়ে নূর হোসেনের বাড়িতে আশ্রয় নেওয়ার জন্য গেলে সেখানে গাজিবর রহমান ও তার বড় ছেলে মাসুমের চাচাতো ভাই আবু তাহের রা আমাকে ধাওয়া করে মাসুম বাশের লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে এবং গাজীবর রহমান আমার পরনের কাপড় টেনে হেচড়ে ফেলে ওশ্লীলতাহানি করে। পরে নূর হোসেনের বাড়ির লোকজন আমাকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করে। পরে আমি আইনের আশ্চয় নিয়ে গাজিবর রহমান চায়না খাতুন,ও মাসুমের বিরুদ্ধে রৌমারী থানায় এসে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।
রৌমারী থানার এস আই শাহীন মিয়া ঘটনা স্থানে এসে এলাকার মাতব্বর গনের 
উপর বিচারের ভার অর্পন করে। মাতাব্বর গন বিবাদী গাজিবরের কাছে বিচারের কথা বললে উল্টা হুমকি প্রদর্শন করে আমাকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। 

এ বিষয়ে রৌমারী থানার এস আই শাহীন মিয়া বললে অভিযোগ পেয়ে আমি ঘটনা স্থলে গিয়ে ঘটনার সাক্ষ্য প্রমাণ নিয়ে এসেছি এবং বিচারের জন্য এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপর  ভার অর্পন করি। যদি বিবাদী গাজিবর রহমান বিচারে বসতে রাজি না হয় পরবর্তীতে আমরা এই বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিব।